সীতাকুণ্ড উপজেলার মুরাদপুর ইউনিয়নের সড়কের বেহাল দশা,পরিত্রান পেতে খোলা চিঠি

Total Views : 502
Zoom In Zoom Out Read Later Print

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি

দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও সড়কের সংস্কার হয়ে যাচ্ছে।কিন্তু চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড উপজেলার মুরাদপুর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের গুলিয়াখালীর রাস্তার পরিবর্তন হলো না।চেয়ারম্যান মেম্বার আসছে যাচ্ছে কিন্তু এই সড়কের সংস্কার হচ্ছে না।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাধারণ মানুষের পক্ষে একটি সংগঠনের সভাপতি রমজান আলি চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক বরাবরে লেখা আবেদনটি হুবহু তুলে ধরা হলো। 

                              

বরাবরে,

জেলা প্রশাসক/উপজেলা চেয়ারম্যান /ইউপি চেয়ারম্যান,

৩নং ওয়ার্ড,গুলিয়াখালী,৪নং মুরাদপুর ইউনিয়ন,

সীতাকুণ্ড, চট্টগ্রাম।

বিষয়ঃ রাস্তা সংস্কারের জন্য আবেদন।


সবিনয় বিনীত নিবেদন এই যে,আমরা চট্টগ্রাম জেলার,সীতাকুণ্ড উপজেলার,৪নং মুরাদপুর ইউনিয়নের, ৩নং ওয়ার্ড গুলিয়াখালী গ্রামের জনগণ।মুজিবনগর উপধিতে এই এলাকাকে ভূষিত করেন সাবেক শ্রদ্ধেয় এমপি মরহুম এবিএম আবুল কাশেম (মাষ্টার) মহোদয়।দুঃখের সহিত আজ বলতে হচ্ছে এলাকার রাস্তাঘাট চলাচলের উপযোগী নয়। গুলিয়াখালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছনের রাস্তাটি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার জনাব এ.কে.এম তফাজজল হক এর বাড়ীর সামনের রাস্তা।এছাড়াও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান তিন জন বীর মুক্তিযোদ্ধা,১.মরহুম মোঃ ইসমাঈল  ২.মরহুম মোঃ কোরবান আলী ৩.মরহুম মোঃ মুন্সি মিয়ার বাড়ীর রাস্তা।এ রাস্তা দিয়ে প্রায় ১২০ পরিবারের লোকজন সহ শিক্ষার্থীরা চলাচল করে।যেখানে একটি ভেনগাড়ী ও চলাচল করতে পারে না। জরুরী কোন রোগী বা মৃত ব্যক্তিকে করবস্থানে নিয়ে যাওয়ার খাটিয়া বয়ে নিয়ে যাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছে।মরহুম ইসমাঈল এর জানাযা পড়তে এসে মুক্তিযোদ্ধা কমন্ডার ও নেতৃবৃন্দগণ চাক্ষুষ দেখেন এ করুণ পরিণতি।তারা ইসমাঈল নানার মৃত দেহ ও বয়ে নিয়ে যেতে এ অসুবিধায় পড়েছিল।উনারা আমাদের আশ্বাস দেন দ্রুত রাস্তাটি সংস্কার করা হবে মুক্তিযোদ্ধা মরহুম ইসমাঈল সড়ক নামে।বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান প্রথমবার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর আমাদের  এলাকার একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে এসে গুলিয়াখালী পশ্চিম পাড়ার এই রাস্তার করুণ অবস্থা দেখে উনি ইউপি চেয়ারম্যান ( সাবেক) মহোদয় কে দ্রুত এ রাস্তার কাজ চালু করার নির্দেশ দেন,এমন কি উপজেলা বা জেলা পরিষদ থেকে হলেও রাস্তাটির কাজ দ্রুত শুরু করবেন বলে আশ্বাস দেন।কিন্তু আজ দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে রাস্তার কাজটির জন্য ১৫০ ফুট পুকুরের পাশে সাইড দেয়াল দেওয়া হলেও দেয়ালের পাশে মাটি দেওয়া হয় নি।বাকী ৩০০ফুটে সাইড দেয়াল ও বাকী।রাস্তা দিয়ে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।


অতএব,মহোদয়ের  নিকট আকুল আবেদন এই যে,গুলিয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছনে, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার এ.কে.এম তফাজ্জল হক,মুক্তিযোদ্ধা ইসমাঈল, মুক্তিযোদ্ধা কোরবান আলী,মুক্তিযোদ্ধা মুন্সি মিয়ার বাড়ীর রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের ব্যবস্থা গ্রহণ করে ১২০ পরিবারের চলাচলপথ সুগম করলে আমরা আপনার নিকট কৃতজ্ঞ থাকব।


নিবেদক,

গুলিয়াখালী এলাকাবাসীর পক্ষে,

গুলিয়াখালী সমাজকল্যাণ যুব সংঘ [রেজিঃ (০৬৫)] এর  সভাপতি

মোঃ রমজান আলী।

See More

Latest Photos