জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে সীতাকুণ্ডের পন্থিছিলার জামশেদ ওরফে আবু

Total Views : 1,030
Zoom In Zoom Out Read Later Print

মোঃ আরিফ উদ্দিন ।।

ঢাকার হৃদরোগ বিভাগে আশংকাজনক অবস্থায় চিকিৎনাধীন রয়েছে পন্থিছিলার হাজীপাড়া নিবাসী মোঃ ভোলার সেজো ছেলে মোঃ জামশেদ।
গতকাল সন্ধা সাড়ে  সাতটার দিকে পন্থিছিলা বাজারে পারিবারিক সমস্যা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ধারালো অস্ত্র  দিয়ে বুকে, হাতে ও পিঠে মারাত্নকভাবে যখম করে পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় মোঃ জামশেদ ওরফে আবুকে স্থানীয়রা প্রথমে সীতাকুণ্ড সদর হাসপাতালে পরে চমেক হাসপাতালে সেখান থেকে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়।
মূল ঘটনা জানার জন্য তাদের বাড়িতে গেলে তাদের মা ক্রাইম নিউজ ও পোস্টকার্ডকে জানান ,তাদের দুই ভাইয়ের মধ্যে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলে আসছিল ঘরের ভেতরে জামশেদের ফার্ম দেওয়াকে কেন্দ্র করে তার পাশেই থাকতেন সুজন। ঘরের ভেতরে ফার্ম দেওয়াতে ব্রয়লার মুরগির দুর্গন্ধ ও ছোট বাচ্চার আওয়াজে তাদের অসুবিধার কথা জামশেদকে জানালে সে পাঁচ দিনের মধ্যে সরিয়ে ফেলার আশ্বাস দেয় কিন্তু সে মুরগি সরায়নি যার ফলে পারিবারিকভাবে অনেক ঝগড়া বিবাদ হয়
সামাজিকভাবে তা মীমাংসাও হয় দফায় দফায় কয়েকবার। ঘাতক সুজন এলাকায় পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করে পাশাপাশি ঝর্ঝরি ঝর্ণায় পর্যটকদের গাইড হিসেবেও কাজ করে বলে জানা গেছে।অপরদিকে জামশেদ এলাকায় নম্র ভদ্র ছেলে হিসেবে সবার কাছে পরিচিত। গরু পালন, মুরগি পালন ও ফ্রেশ পানির ডিলারশীপ রয়েছে বলে জানা যায়। 
সুজন ওয়ার্ড আওয়মীলীগের সদস্য আর জামশেদ ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি। জামশেদের সাথে এলাকার কারো সাথে কোন দ্বন্দ্ব নেই বলে জানান কয়েকজন এলাকাবাসী পক্ষান্তরে সুজন এলাকায় পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করে অনেক মানুষকে টাকার বিনিময়ে  পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।
জামশেদের সর্বশেষ অবস্থা জানার জন্য তার স্ত্রীকে ফোন করা হলে তিনি জানান, বর্তমানে আইসিইউতে রয়েছে । মামলা করা হবে কিনা জানতে চাইলে,ঢাকায় জামশেদের সাথে থাকা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম কোরাইশি বলেন, আগে জামশেদকে বাঁচানো জরুরি বর্তমানে তার যেই অবস্থা। মামলা করবে কিনা তার স্ত্রীর সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে সম্ভব হয়নি।

See More

Latest Photos