১৯টি সেরা উদ্ভাবনকে পুরস্কৃত করলো বাংলাদেশ ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড ২০১৮

Total Views : 88
Zoom In Zoom Out Read Later Print

অনলাইন ডেস্ক ।

বাংলাদেশকে উদ্ভাবনের উচ্চ শিখরে নিয়ে যেতে বিআইসি (বাংলাদেশ ইনোভেশন কনক্লেভ) প্রথমবারের মতো আয়োজন করলো বাংলাদেশ ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড যেখানে দেশের সেরা ১৯টি উদ্ভাবনী কাজকে পুরষ্কৃত করা হয়। রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে এক জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে এই পুরষ্কার তুলে দেয়া হয়। মাস্টারকার্ড এর পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠিত এই অ্যাওয়ার্ড এর আয়োজনের ছিলো বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম।
বাংলাদেশ ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড এর মূল লক্ষ্য ছিল এদেশের উদ্ভাবনী ক্ষেত্রে স্টার্টআপ কোম্পানি থেকে শুরু করে প্রতিষ্ঠিত সংস্থাগুলোর সাফল্য এবং সৃজনশীলতার উদ্দীপক হিসেবে কাজ করা।
পুরষ্কার প্রদান অনুষ্ঠানের আগে সেখানে আরো অনুষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ ইনোভেশন ডায়ালগ যেখানে দেশি বিদেশী বক্তারা কথা বলেন। ছিলো ২ টি কী-নোট সেশন এবং ২ টি প্যানেল আলোচনা যেখানে দেশের শীর্ষস্থানীয় উদ্ভাবন বিশেষজ্ঞ এবং কর্পোরেট কর্মকর্তারা তাদের মতামত তুলে ধরেন।
অনূষ্ঠানের শুরুতে মাস্টারকারডের কান্ট্রি ম্যানেজার সাঈদ মোহাম্মদ কামাল তার উদ্বোধনী বক্তব্য প্রদান করেন।
অনুষ্ঠিত হবার প্রথম বছরেই বাংলাদেশ ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড-এ নয়টি মূল ক্যাটাগরিসহ আরেকটি বিশেষ ক্যাটাগরিতে মোট ১৬৮ টি মনোনয়ন জমা পড়েছিলো। বিজয়ী এবং বিশেষ উলে­খ্য- এই দু’টি অধীনে অ্যাওয়ার্ডগুলো প্রদান করা হয়। বিজয়ীদের নির্বাচন করার জন্য দুটি জুরি অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়, যেখানে দেশের প্রখ্যাত বিশেষজ্ঞদের দ্বারা মনোনয়নগুলো মূল্যায়ন করা হয়। পণ্য, সেবা কিংবা প্রক্রিয়া খাতে যেকোন ধরণের অগ্রগতি, তাদের নতুনত্ব, বাজারের চাহিদা, অর্থনৈতিক প্রভাব- এ কয়েকটি মানদন্ডের উপর এবারের ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

কী-নোট সেশনের বক্তা ছিলেন মাস্টারকার্ড ল্যাব – এশিয়া প্যাসিফিকের ইনোভেশন ম্যানেজমেন্টের পরিচালক বরুণ সখুজা এবং নিয়েলসন দক্ষিন এশিয়ার নির্বাহী পরিচালক মনোজ কুলকার্নি।

প্যানেল আলোচকরা ছিলেন – ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর ব্যবসায় প্রশাসন ইন্সটিটিউট এর পরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ ফারহাত আনোয়ার; প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি এফেয়ার্স এর প্রিন্সিপাল কো-অর্ডিনেটর মোঃ আবুল কালাম আজাদ; ব্র্যাক এর এডভোকেসি, টেকনোলজি এবং পার্টনারশিপ বিভাগ এর পরিচালক কে এ এম মোরশেদ; ব্রিটিশ অ্যামেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেহজাদ মুনিম; গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স ক¤পানী লিঃ এর এমডি এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, ফারজানা চৌধুরী এসিআইআই (যুক্তরাজ্য); আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ফরহাদ আহমেদ; বেসিস এর প্রেসিডেন্ট সৈয়দ আলমাস কবির; গ্রামীণফোন লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাইকেল প্যাট্রিক ফোলে; রবি আজিয়াটা লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব উদ্দিন আহমেদ; বিকাশ লিঃ এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদির; ডেটাসফট সিস্টেম বাংলাদেশ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব জামান;
এসিআই লজিস্টিক্স লিমিটেড এর নির্বাহী পরিচালক সাব্বির হাসান নাসির; ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক
সৈয়দ মাহবুবুর রহমান; আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ এর রিয়েল এস্টেট, জুট অ্যান্ড অটোমোবাইল ডিভিশন এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসেন খালেদ; এবং রহিমআফরোজ লিঃ এর গ্রুপ পরিচালক মনোয়ার মিসবাহ মঈন।
উক্ত অনুষ্ঠানে আরো একটি বিশেষ ডায়ালগ সেশনের বক্তা হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ ইনোভেশন কনক্লেভের ফাউন্ডার শরিফুল ইসলাম এবং টেন মিনিট স্কুলের ফাউন্ডার আয়ামান সাদিক।

অনুষ্ঠানটি আয়োজনে অংশীদার হিসেবে ছিলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর আইসিটি বিভাগ, ইউএসএআইডি এবং ইউএনডিপি। এছাড়াও র্স্ট্যাটেজিক পার্টনার হিসেবে ছিল বাংলাদেশ ক্রিয়েটিভ ফোরাম এবং বেসিস; ইভেন্ট পার্টনার – লে মেরিডিয়ান ঢাকা; টেকনোলজি পার্টনার – আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড; ডিজিটাল মিডিয়া পার্টনার- গিকি সোশাল; মিডিয়া পার্টনার- ঢাকা ট্রিবিউন; পিআর পার্টনার- মাস্টহেড পিআর; লাইভ ব্রডকাস্ট পার্টনার ডিজিটাল এক্সপ্রেস; এবং রেডিও পার্টনার- রেডিও টুডে।

See More

Latest Photos